২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার
৩রা জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

শীতে জবুথবু রাজধানী নয়াদিল্লিও!

তীব্র ঠান্ডা ও ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত ভারতের উত্তরাঞ্চলের জনজীবন। শীতে জবুথবু রাজধানী নয়াদিল্লিও। এতে ব্যাহত হচ্ছে সড়ক, রেল ও বিমান চলাচল। ঘন কুয়াশায় কয়েক হাত দূরের কিছু দেখাও দুরহ। তার ওপর জেঁকে বসেছে তীব্র ঠান্ডা। আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা জম্মু কাশ্মীরবাসীর। ঠান্ডার কারণে প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না কেউই। তবে গরম কাপড় কিনতে কিছুটা ভিড় দেখা যায় রাস্তার দোকানগুলোতে। চলতি মাসের মাঝামাঝি থেকে শুরু হওয়া শৈত্যপ্রবাহে নাকাল পাঞ্জাবের জনজীবন। আগুন পোহাতে দেখা যায় লুধিয়ানাবাসীদের। উত্তরাঞ্চলের পাশাপাশি শীতে কাঁপছে রাজধানী নয়াদিল্লিও। শতাব্দির দ্বিতীয় সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ডের পরও প্রতিনিয়ত কমছে রাজধানীর তাপমাত্রা। শীতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত ছিন্নমূল মানুষ। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করে এসব মানুষের। একজন বলেন, ১৫ দিন ধরে এখানে আছি। ডাক্তার দেখানোর জন্য আমার ৮ বছরের শিশুকে নিয়ে এ খোলা জায়গায় পড়ে আছি। ডাক্তারের কাছে গেলেও তিনি পরে দেখা করতে বলেছেন। শীতের প্রভাব পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থায়। সড়ক ও রেল যোগাযোগ ব্যাহত হওয়ার পাশাপাশি বিমানের বেশ কিছু ফ্লাইট বিলম্বিত হয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আবহাওয়া বিভাগ বলছে, উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, পাঞ্জাব, রাজস্থান, দিল্লিসহ ভারতের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আরও কয়েকদিন শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। এই অবস্থায় সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।